‘স্থুল’ হচ্ছে স্থুলতা, একই খাবার খেয়েও আগের চেয়ে বেশি বাড়ছে ওজন

যদি আপানার বয়স হয় ২৫ বছরের আশাপাশে, আর ওজন কমানো যদি আপনার জীবনের অন্যতম সমস্যা হয়ে থাকে, তবে জেনে রাখুন আরও বেশি পরিশ্রম করতে হবে আপনাকে। খেতে হবে আরও কম, শরীরচর্চা করতে হবে আরও বেশি। আপনার বাবা, মায়ের থেকে অনেক বেশি। এমনটাই জানাচ্ছে নতুন গবেষণা।

42997-obesity

গবেষণা বলছে আগের প্রজন্মের কাছে রোগা থাকা অনেক সহজ ছিল। বেশি খেয়ে, কম শরীরচর্চা করেও তারা নিজেদের ওজন বশে রাখতে পারতেন। তবে বর্তমান সময় পরিবেশ ও জীবনযাপনের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে আমাদের ওজনেও পড়ে তার প্রভাব। কানাডার টরন্টোর ইয়র্ক ইউনিভার্সিটির গবেষক জেনিফার কুক জানান, ডায়েট ও শরীরচর্চাই ওজন বাড়ার একমাত্র কারণ নয়। রয়েছে আরো গুরুতর কারণ।

১৯৭১ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত ৩৬,৪০০ জন প্রাপ্তবয়স্ক মার্কিনির ওপর গবেষণা চালায় ইউএস ন্যাশনাল হেলথ অ্যান্ড নিউটিট্রশন সার্ভে। ১৯৮৮ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত ১৪,৪১৯ জন প্রাপ্তবয়স্কের গড় শারীরিক কর্মক্ষমতার তথ্যও পরীক্ষা করা হয়। মুখ্য গবেষক রুথ ব্রাউন জানান, “১৯৭১ সালে যেই পরিমান খাবার খেলে যতখানি ওজন বৃদ্ধি হত, ২০০৮ সালে সেই একই পরিমান খাবারের জন্যই ১০ শতাংশ বেশি ওজন বৃদ্ধি হয়।”

শুধু খাবারের ক্ষেত্রে নয়, ১৯৮৮ সালে যে শরীরচর্চায় যতখানি ওজন কমতো ২০০৬ সালে সেই শরীরচর্চায় অন্তত ৫ শতাংশ কম ওজন কমে। বর্তমান সময়ে ওবেসিটি ক্রমবর্ধমান সমস্যা হওয়ার কারণ হিসেবে এই বিষয়গুলি তুলে ধরেছেন ব্রাউন। পরিবেশ ও জীবনযাপন যেমন, ওষুধ, দূষণ, বংশগত কারণ, খাওয়ার সময়, মানসিক চাপ, ব্যাকটেরিয়া এমনকী রাতজাগার ওপর নির্ভর করে শরীরের ওজন। কুক বলেন, সুস্থ শরীর ধরে রাখা এখন সবথেকে বড় সমস্যা। ওবেসিটি রিসার্চ ও ক্লিনিকাল প্র্যাকটিস জার্নালের আগামী সংখ্যায় প্রকাশিত এই গবেষণার ফল।

সোর্সঃ http://zeenews.india.com/bengali

আরো পোস্ট দেখুন

comments