পর্যাপ্ত ঘুমের মাধ্যমে হয়ে উঠুন স্লিম

আপনি যদি ছিপছিপে স্লিম শরীরের অধিকারী হওয়ার কথা একবারের জন্য হলেও ভেবে থাকেন তাহলে আপনার জন্য এই আর্টিকেলটি সাধারণত স্লিম শরীরের অধিকারী হতে হলে খাওয়াদাওয়া নিয়ন্ত্রণ থেকে শুরু করে জিমে গিয়ে ঘাম ঝরানো পর্যন্ত আরও কত কিছুই না আমরা করে থাকি।আর এত কিছু করতে গিয়েই মূলত আমরা আমাদের ঘুমের ব্যাপারে একেবারেই ভুলে যাই। অথচ কিন্ত ঘুমের ব্যাপারে একটু মনযোগ দিলেই আমাদের স্বাস্থ্যের যেমনটা উন্নতি হয়, তেমনি ওজন চলে আসে অনেক বেশি নিয়ন্ত্রণে।

Woman taking measurements of her body on blurry background

রাতভর শান্তির ঘুম হচ্ছে মেদহীন কোমর পাওয়ার জন্য একটি গোপন টিপস। আমাদের ঘুমের অভাব হওয়ার ফলে শরীরে হরমোনের মাত্রায় অনেক বেশি গোলমাল তৈরি করে। বিশেষ করে আমাদের দেহে এমন কিছু হরমোন আছে যারা ক্ষুধা, রুচি এবং রক্তের সুগার লেভেল প্রভাবিত করে তোলে। আর এ কারণেই যথেষ্ট ঘুম না হলে আপনার ক্ষুধা যেমনি করে বাড়বে তেমনি রুচিও বেড়ে যায়, যার ফলে আপনি শুরু করেন অতিরিক্ত খাওয়া দাওয়া। আর ঘুম কম হওয়ার কারণে শরীর রক্তের সুগার লেভেল নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না। সেকারণেই ওজন বাড়তে শুরু করে সেই সাথে ডায়াবেটিসের সম্ভাবনাও দ্বিগুণ বেড়ে যায়। আর আপনি যদি আপনার স্বাস্থ্য ভালো রাখতে চান তাহলে অবশ্যই ভালো মত ঘুমাতে হবে। নিচে জেনে নিন ঘুমের এমন কিছু কিলার টিপস যার ফলে আপনার স্বাস্থ্য থাকবে অনেক ভালো এবং আপনি হয়ে উঠবেন রীতিমত স্লিম ফিগারের অধিকারী।

১) ঘুমাতে যাওয়া এবং ঘুম থেকে ওঠার জন্য সবসময়একটি নির্দিষ্ট সময় মেনে চলার চেষ্টা করুন। এবং কি আপনাদের ছুটির দিনেও চেষ্টা করবেন এই একই রুটিন মেনে চলতে।
২) যে সময়ে আপনাকে ঘুম থেকে উঠতে হতে পারে, চেষ্টা করুন তার নয় ঘন্টা আগে ঘুমাতে যাবার জন্য কারণ এ সময়টা মোটামুটি রাত দশটা ধরে নিতে পারেন। এ সময় শরীরের মেলাটোনিন লেভেল আমাদের ঘুমের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত থাকে।
৩) ঘুমাতে যাবার ঠিক এক ঘন্টা আগে এমন কিছু করা ঠিক নয় যাহাতে আমাদের মস্তিষ্ককে বেশি কাজ করতে হয়। টিভি, আইপ্যাড এবং মোবাইল ফোন বন্ধ করুণ। এছাড়াও এমন কোনো রকমের স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকবেন না যেখান থেকে আপনার কাছে কোন প্রকার নীল আলো আসে। মনে রাখবেন এই আলো আমাদের ঘুমের সবচেয়ে বেশি ব্যাঘাত ঘটায়।
৪) আপনার ঘরের আলো কমিয়ে দিয়ে রাখবেন ঘুম না আসলে কারণ আলো বেশি উজ্জ্বল থাকলে তা আমাদের শরীরকে বেশি সময় জাগিয়ে রাখে।
৫) খেয়াল রাখবেন ঘুমাতে যাবার ঠিক তিন ঘন্টা আগে থেকে ক্যাফেইন জাতীয় পানীয় , ধূমপান, এবং ভারী খাবার খাওয়া থেকে একেবারেই বিরত থাকুন। বিশেষ করে বেশি চিনি ও শর্করা না খাওয়াই সবচেয়ে উত্তম।
৬) অনেকেই হয়তো জানেন না যে মেডিটেশন এবং যোগব্যায়াম ঘুমের জন্য কতটা ভালো। এগুলোর অনুশীলন করলে আপনার মনের জন্য যেমন সুফল আনবে ঠিক তেমনি ভালো স্বাস্থ্যর জন্যও।
৭) ঘুম যদি না আসে তাহলে অযথা বিছানায় শুয়ে সময় কাটাবেন না। বিছানা থেকে উঠে চেষ্টা করবেন হালকা কোনো রকমের কাজ করতে এবং ঘুম এলে তারপর ঘুমানোর জন্য বিছানায় চলে যাবেন।
৮) সবসময় ব্যবহার করুণ আরামদায়ক এবং পরিষ্কার ম্যাট্রেস, চাদর এবং বালিশ।

সুত্র: Dr. Doni Wilson, Huffington Post

আরো পোস্ট দেখুন

comments