সি প্রোগ্রামিং [পর্ব-০২]:: ভ্যারিয়েবল এবং ডাটা টাইপ

ভ্যারিয়েবল হচ্ছে একটি নাম যা দিয়ে কম্পিউটারের মেমোরিতে কোন ডাটা রাখা হয়। এই ডাটা হতে পারে নিউম্যারিক (যে কোন সংখ্যা) অথবা একটি ক্যারেকটার মান। আর এই ভ্যারিয়েবলের মধ্যে কি ধরনের ডাটা রাখা হবে তাই হচ্ছে ডাটা টাইপ।

সি প্রোগ্রামিং এর ক্ষেত্রে প্রধান ৪ ধরনের ডাটা টাইপ আছে।

ইন্টিজার ডাটা টাইপ

ইন্টিজার ডাটা টাইপ বলতে অবিভাজ্য সংখা যেমনঃ ১, ২, ৩ ইত্যাদি বুঝায়। এর সাইজ ২ বাইট বা ১৬ বিট এবং রেঞ্জঃ -৩২৭৬৮ থেকে +৩২৭৬৭ পর্যন্ত কিছু কিছু কম্পাইলারে ইন্টিজার ডাটার জন্য ৪ বাইট মেমোরি দিয়ে থাকে।

1

 

ক্যারেকটার ডাটা টাইপ

ক্যারেকটার ডাটা টাইপ বলতে একটি বর্ন যেমন a, b, z, A, N ইত্যাদি বুঝায়। এর সাইজ ১ বাইট বা ৮ বিট এবং রেঞ্জঃ -১২৮ থেকে +১২৭ পর্যন্ত। আমাদের কীবোর্ডের প্রত্যেকটি চিহ্নই এক একটা  character।

2

 

ফ্লট ডাটা টাইপ

ফ্লট ডাটা টাইপ বলতে দশমিক সংখ্যা যেমনঃ ১০.৫, ১.৮, ৫.৬ ইত্যাদি বুঝায়। ফ্লটিং ডাটা টাইপ দশমিকের পর ৬ ঘর পর্যন্ত নির্ভুল মান দিতে পারে।

3

 

ডাবল ডাটা টাইপ

ডাবল ডাটা টাইপ বলতে অধিক বড় দশমিক সংখ্যার মানকে বুঝায়। এটা ফ্লট ডাটা টাইপের মতই তবে সাইজ অনেক বড় হয়ে থাকে। এর সাইজ ৮ বাইট বা ৬৪ বিট এবং এটি দশমিকের পর ১৫ ঘর পর্যন্ত নির্ভুল মান দিতে পারে।

4

 

আজকের মত এই পর্যন্তই। পরবর্তী টিউনে সি প্রোগ্রামিং নিয়ে আরও আলোচনা করবো। সেই পর্যন্ত ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন আর সোর্সটিউনের সাথে থাকুন। আর হ্যাঁ টিউন কেমন হয়েছে জানাতে ভুলবেন না, আপনাদের উৎসাহই আরও ভালো টিউন উপহার দেয়ার অনুপ্রেরণা যোগাবে। ফেসবুকে আমি

আরো পোস্ট দেখুন

comments