লম্বা সময় ধরে মুখের উজ্জ্বলতা ধরে রাখার ৬ টি সহজ উপায়

modelmehzabeen

সুন্দর ত্বক কে না পছন্দ করে। আর যদি সেটা হয় লম্বা সময়ের জন্য তাতে তো কথাই নেই। কিন্তু সময়ের অভাবে এবং ব্যাস্ততার কারনে অনেক সময়ই ত্বকের প্রতি অতটা যত্ন নেওয়া সম্ভব হয়ে উঠে না। আর সাধারণত মেয়েদের এবং মহিলাদের পড়াশোনা এবং বাইরের কাজের জন্য সারাক্ষন রোদে অথবা ধুলা ময়লার থাকতে থাকতে ত্বক একসময় অনুজ্জ্বল হয়ে পড়ে। ফলে আয়নার সামনে দাঁড়ানোর পর যদি দেখেন যে আপনার মুখে বয়সের ছাপ অথবা রোদে পোড়া দাগ পরে চেহারার উজ্জ্বলতা নষ্ট হয়ে গেছে, তাহলে নিয়ের কাছেই অনেক খারাপ লাগবে। তাই সারাদিনের ব্যাস্ততার পর রাতে এবং ছুটির দিনগুলোতে একটু সময় বের করে ত্বকের যত্ন নিলে আপনি যেমন আপনার মুখের উজ্জ্বলতা অনেক দিন ধরে রাখতে পারবেন এবং মুখে সহজেই বলিরেখা পরা থেকে নিজেকে বাচাতে পারবেন।

রাতে মুখ পরিষ্কার করাকে আপনার প্রতিদিনের রুটিনে যোগ করুনঃ

রাতে ঘুমানোর আগে আপনার মুখের ধুলোবালি, মেকআপ অবশ্যই তুলে ভালোভাবে পানির ঝাপটা দিয়ে মুখ ধুয়ে নেওয়াটাকে আপনার প্রতিদিনের রুটিনের সাথে অবশ্যই যোগ করুন। কারন এটা শুধু আপনার মুখে পোর গুলোই খুলে দিবে না বরং রাতে ঘুমানোর সময় বালিশে লেগে থাকা ব্যাক্টেরিয়ার আক্রমন থেকে আপনার মুখকে রক্ষা করবে। এক্ষেত্রে আপনি প্রথমে মেকআপ রিমুভার দিয়ে সম্পুর্ন মুখ ভালোভাবে ঘষে নিন। এরপর আপনার ত্বকের সাথে মানানসই জেন্টেল সোপ অথবা

ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিন। মুখে সাবান লাগানোর সময় আপনার চোখের পাশের জায়গাগুলো বাদ দিন। এরপর ভালোভাবে মুখে কয়েকবার ঠাণ্ডা পানির ঝাপটা দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এরপর অবশ্যই গরম তোয়ালে মুখে চেপে ভালোভাবে মুখ শুকিয়ে নিতে হয়ে। কারন ভেজা ত্বকে ব্যাক্টেরিয়ার আক্রমন অনেক বভেশী হয়ে থাকে।

আরো পড়ুনঃ ত্বকের ফাটা দাগ দূর করার খুব সহজ ৩টি কার্যকরী পদ্ধতি

টোনার ব্যাবহার করুনঃ

প্রতিদিন মুখ ধোয়ার পর অবশ্যই টোনার ব্যাবহার করুন। কারন টোনার আপনার মুখে ময়লা এবং তেল গোড়া থেকে তুলে দিতে সাহায্য করবে যা সাবান অথবা ফেসওয়াশ সবসময় পারে না। একটু তুলার বল নিয়ে এতে টোনার ভিজিয়ে মুখে হালকা করে ঘষে ঘষে ময়লা তুলে নিন। বিশেষ করে কপাল এবং নাকের আশেপাশের জায়গাগুলোকে কখোনো বাদ দেবেন না। কারন ওইসব জায়গায় তেল এবং ময়লা বেশী জমে থাকে।

প্রতিদিন অবশ্যই ত্বককে মশ্চারাইজার করুনঃ

প্রতিদিন সকালে বাসা থেকে বের হওয়ার আগে এবং রাতে মুখ ধোয়ার পরে অবশ্যই মশ্চারাইজার ব্যাবহার করুন। এটি আপনার তকের ড্যামেজকে পুরন করে আপনার মুখে ভাজ পরা থেকে ত্বককে রক্ষা করবে। সকালে বাইরে বের হওয়ার সময় লাইট মশ্চারাইজার যেমন জেল মশ্চারাইজার ব্যাবহার করুন এবং রাতের জন্য ভারী ক্রীম এবং মশ্চারাইজার রেখে দিন। ওহ, আপনার হাতের কনুই এবং ঘাড় এই জায়গাগুলোকে ভুলে যাবেন না। কারন বাইরে বের হলে এগুলোও অনেক শুষ্ক হয়ে যায়।

সপ্তাহে একদিন স্ক্রাব ব্যাবহার করুনঃ

সপ্তাহে একদিন আপনার ত্বকে স্ক্রাব ব্যাবহার করুন। কিন্তু স্ক্রাব ব্যাবহারের সময় অবশ্যই আপনার ত্বককে জোরে ঘষবেন না। এতে আপনার ত্বকের ক্ষতি হতে পারে। সাধারণত দুই চামুচ মধুর সাথে এক চামুচ চিনি মিশিয়ে খুব ভালোভাবে প্রাকিতিক স্ক্রাব তৈরী করা যায় যেটা ত্বকের ময়লা পরিষ্কার করতে খুবই উপকারি। স্ক্রাব মুখে দিয়ে ৭ থেকে ১০ মিনিট মুখে ভালোভাবে ম্যাসাজ করে কুসুম গরম পানিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

প্রতিদিন বাইরে বের হওয়ার আগে সান্সকিন ব্যাবহার করুনঃ

আপনার ত্বককে অবশ্যই সুর্যের ইউভি রশ্মি থেকে রক্ষা করুন। এজন্য প্রতিদিন রোদে যাওয়ার আগে অবশ্যই সান্সকিন ব্যাবহার করতে হলে। কারন ত্বক রোদে পুড়লে খুব সহজে মুখে বলিরেখা পড়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই বাইরে যাওয়ার আগে সম্পুর্ন মুখে এবং গলার এসপিফ ৩০ যুক্ত সান্সকিন ব্যাবহার করুন। এছাড়া মেকাপের ক্ষেত্রে সান্সকিন এবং মশ্চারাইজার যুক্ত ফাউন্ডেশন ব্যাবহার করতে পারেন। এতে মেকাপের বেস ও অনেক ভালো হবে।

মুখে ব্রণ হওয়ার আগেই ওটাকে প্রতিরোধ করুনঃ

সপ্তাহে একদিন আপনার ঘুমানোর বালিশের কাভার অবশ্যই পরিবর্তন করুন। এতে করা আপনার বালিশে লাগে থাকা ব্যাক্টেরিয়া আপনার মুখ ব্রন তপরী করতে পারবেন না। ঘুমানোর সময় যদি আপনি হাত মুখের উপর দিয়ে ঘুমান তাহলে এই অভ্যাসটি আজই বর্জন করুন। কারন আপনার হাতে লেগা থাকা তেল আপনার মুখে ব্রণ তৈরী করতে পারে। ঘুমানোর সময় চুল পেছন দিকে দিয়ে ঘুমানোর চেষ্টা করুন। যদি আপনার চুল অনেক লম্বা হয় তাহলে রাতে বেধে ঘুমানোই ভালো। আর বার বার আপনার চুলকে কপালের উপর আস্তে দিবেন না। এতে করে চুলে লেগা থাকা ময়লা আপনার মুখে ব্রন তৈরি করতে পারবে না। সবসময় স্ট্রেস ফ্রী থাকার চেষ্টা করুন এবং প্রতিদিন অবশ্যই রাতে পর্যাপ্ত পরিমান ঘুমের অভ্যাস করুন। এছাড়া প্রতিদিন ৪ থেকে ৫ লিটার পানি পান করুন। এতে ব্রণ আপনার ধারের কাছেও আস্তে পারবে না।

আরো পোস্ট দেখুন

comments