ব্লগিং নিয়ে ধারাবাহিক টিউনের প্রথম পর্ব- শুরুটা করবেন কিভাবে?

শুরুতেই আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করছি “বেঁচে আছি” বলে। Outsourcing নিয়ে কাজ করার সুবাধে অনেকেই ফেসবুকে মেসেজ দিয়ে থাকেন ব্লগিং শুরুর ব্যাপারে। আপনাদের কথা ভেবেই এই পোস্ট লেখা। এতে করে যারা নতুন ব্লগিং শুরু করতে চান, তাদের অনেক কাজে আসবে।  আসলে লেখালেখি খুব একটা হয় না আমার দ্বারা। লেখার চেয়ে ফান-ই বেশি করি 😛 তবুও যেহেতু ব্লগিং করছি নিয়মিত, সেহেতু চেস্টা করবো সম্পূর্ণ নিজের ব্যক্তিগত মতামত তুলে ধরতে। অন্যান্য প্রফেশনালদের সাথে হয়তো আমার লেখা খুব একটা মিলবে না। কিন্তু, আমি ওই সব ইংলিশ টু বাংলা ট্রান্সলেশন এর মধ্যে নেই!!! মন থেকে যা আসে, তাই লিখি। তাহলে চলুন, ব্লগিং নিয়ে শুরু হউক আমাদের শুভ যাত্রা। সাথে আমি অন্যরকম মানুষ তো আছিই। :)

ব্লগিং কি?

ব্লগিং কি?
ব্লগিং কি সেটা জানতে গালে হাত দিলে হয় না রে, পাগলা। Google এ সার্চ করতে হয় 😛 [Photo Credit: Google.com]

ব্লগিং বলতে আসলে আগে বুঝাতো এমন একটা ওয়েবসাইট, যেটাতে কোন ব্যক্তি তার একান্তই ব্যক্তিগত মতামত/তথ্য/উপাত্ত প্রকাশ করতো। অনেকটা ব্যক্তিগত ডায়েরীর মত। আমরা যেমন ছোট বেলায় গান/কবিতা/ছড়া লিখতাম ডায়েরীতে, সেটারই ডিজিটাল ভার্সন হচ্ছে এই “ব্লগিং” । যেখানে ব্যক্তি তার একান্তই নিজস্ব চিন্তা-চেতনা অন্যান্যদের মাঝে ছড়িয়ে দেয়। তবে সময়ের আবর্তনে ব্লগিং এ এসেছে আমূল পরিবর্তন। শুরুর দিকে মানুষ নিজের ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে লিখলেও এখন সেটা অনেকটাই প্রসারিত হয়েছে। যেমন ধরুন, আপনি খুব ভালো খেলা বুঝেন। খেলার প্রেডিকশন করতে পারেন, যে কোন খেলার উপর আপনার খুব ভালো অভিজ্ঞতা আছে। আপনি হয়তো সেটা প্রতিদিন ফেসবুকে প্রকাশ করে থাকেন। এখন একই বিষয় আপনি একটা ওয়েবসাইটে প্রকাশ করাই হচ্ছে ব্লগিং। আর যখন কোন ব্যক্তি তার ওয়েবসাইটে লেখালেখির (ব্লগিং) এর মাধ্যমে ইনকাম শুরু করেন, তখন সেটা হয়ে যায় প্রফেশনাল ব্লগিং।

এখন ধরুন, আপনি যেহেতু খেলা নিয়ে খুব বেশী আগ্রহী। আর আপনি এই বিষয়ে খুব ভালো ধারণা রাখেন, সেহেতু আপনি এই Sports টপিকের উপর একটা ব্লগ শুরু করতে পারেন। তবে এর জন্যে অবশ্যই আপনার লেখার মান হতে হবে অনেক উন্নত। কারণ, আপনি যে বিষয়ের উপর লিখছেন, মনে রাখবেন সেই একই বিষয়ের উপর কিন্তু অন্যান্যরাও লিখছে। তাই, তাদের চেয়ে যত ভালো আপনি লিখতে পারবেন, তত বেশী পাঠক আপনার ব্লগ পড়তে আসবে। আর যদি আপনি ব্লগে ইনকামের কথা চিন্তা করেন, সেক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই ইংরেজীতে লেখালেখি করতে হবে। কারণ, বাংলায় আপনি শুধুমাত্র এদেশে পাঠক তৈরি করতে পারবেন, কিন্তু ইংরেজীতে লিখলে আপনি প্রায় সব দেশের পাঠক পাবেন। সুতরাং, আপনাকে অবশ্যই অবশ্যই ইংরেজিতে ব্লগিং করতে হবে।

শুরুটা করবেন কিভাবে?

প্রফেশনাল ব্লগিং শুরু করতে হলে  আপনার প্রথমেই দরকার একটা Domian। আর Web Hosting । ডোমেইন কেনার ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে “ডোমেইন কিনবেন? একটু বুঝে শুনে কিনুন, যদি প্রতারিত হতে না চান! মনোযোগ দিয়ে পড়ুন। কাজে লাগবে অবশ্যই” পোস্টটি পড়ুন এবং  Hosting কেনার ক্ষেত্রে রাজীব হাসান ভাইয়ের এই পোস্টটি  “নতুন হোস্টিং কেনার আগে একবার দেখে নিন” পড়ুন।  আর ওয়েবসাইট তৈরির ক্ষেত্রে অবশ্যই WordPress CMS ব্যবহার করবেন। কারণ, ওয়ার্ডপ্রেস SEO Friendly প্ল্যাটফর্ম।

কিভাবে ব্লগিং শুরু করবেন?
How To start A Blog? চিন্তা নেই, চলুন Step By Step জেনে নেই। [Photo Credit: Google.com]

ওয়েবসাইট তো হয়ে গেলো। এবার আসুন অন্যান্য বিষয়ে। আমার মতে শুরুর দিকে আপনার মাথা থেকে ইনকামের ভুতটাকে সরিয়ে রাখুন। ইনকাম অবশ্যই করবেন, তবে শুরুতেই যদি আপনি ইনকামের চিন্তা করে ব্লগ তৈরি করেন, সেক্ষেত্রে আপনার মধ্যে অল্পতেই হতাশা চলে আসবে। একটা কথা ভালো করে মাথায় গেঁথে রাখুন “ব্লগিং এ শর্টকাট সাকসেস বলতে কিছু নেই“। আপনি আপনার ব্লগ এর জন্যে যা লিখবেন, তা যেন আপনার একান্তই মনের ভেতর থেকে আসে। যে লেখাটাই লিখবেন, সেটাকে ভালোবেসে লিখুন। যারা পড়বে তাদের কথা চিন্তা করে লিখুন। মনে রাখবেন, আপনি যত বেশী আপনার পাঠকদের কথা চিন্তা করে লিখবেন, আপনার ব্লগ ততবেশী জনপ্রিয়তা পাবে। আর যেখানে অনেক বেশী পাঠক, সেখানে ইনকামের রাস্তার অভাব নেই। আর পাঠক কিভাবে বাড়াবেন, সেই বিষয়ে আগামী পোস্টগুলোতে বিস্তারিত আলোচনা করব।

এই পোস্টের গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলো মনে রাখুন।

১। ব্লগিং এর শুরুতে ইনকামের কথা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলুন।

২। আপনার ব্লগের জন্যে যাই লিখবেন, সেটা মন থেকে লিখুন। পাঠকদের কথা চিন্তা করে লিখুন।

৩। ব্লগিং এ শর্টকার্ট সাকসেস বলতে কিছু নেই। তাই, একটা লম্বা সময় আপনাকে ব্লগিং এর পেছনে পড়ে থাকতে হবে। সেই রকম মন-মনসিকতা ও প্রস্তুতি নিয়েই মাঠে নামুন।

৪। অল্পতেই হতাশ হওয়ার কিছু নেই। এমন কোন ব্লগার বলতে পারবে না যে, সে খুব অল্প সময়েই সাকসেস পেয়েছে। (যদি কেউ বলে থাকে, তাইলে বুঝবেন সবই মিডিয়ার সৃষ্টি 😛 )

৫। এমন বিষয় নিয়ে ব্লগিং শুরু করুন, যেটা আপনি খুব ভালো জানেন। ধরুন, আপনার খুব বেশী আইডিয়া আছে খেলার উপর, তাহলে আপনি খেলার উপরই ব্লগ করুন। ভুলেও বিনোদন নিয়ে শুরু করতে যাবেন না। এতে করে মাঝপথে বিপদে পড়তে পারেন। কিংবা আপনার লেখা পাঠকদের পছন্দ নাও হতে পারে। কারণ, হোমিওপ্যাথীর ডাক্তার কে দিয়ে তো  আপনি হার্টের অপারেশন করাতে পারবেন না। 😛

আজকের মত এখানেই বিদায় নিচ্ছি। আমার লেখা পড়ে যদি আপনাদের ভালো লাগে তাহলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেমন Facebook, Twitter ইত্যাদিতে শেয়ার দিতে ভুলবেন না। জানেনই তো, প্রচারেই প্রসার। 😛 আর যে কোন প্রশ্ন থাকলে আমাকে সরাসরি ফেসবুকে ম্যাসেজ দিতে পারেন। ফেসবুকে আমাকে পাবেন “অন্যরকম মানুষ” নামে। 

পরবর্তী টিউনঃ ব্লগিং নিয়ে ধারাবাহিক টিউনের দ্বিতীয় পর্ব- বিষয় নির্বাচন (Keyword Research)

কিওয়ার্ড রিসার্চ বলতে গেলে ব্লগ শুরুর অন্যতম প্রধান কাজ। এখানে যদি ভুল বিষয় নির্বাচন করেন, তাহলে আপনার সফলতা পাওয়া অনেক বেশী কস্টসাধ্য হয়ে পড়বে। আর এ কারণেই প্রত্যেক ব্লগারদের জন্য মহা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে কিওয়ার্ড রিসার্চ বা বিষয় নির্বাচন। এই কিওয়ার্ড রিসার্চে আপনাদের জন্যে থাকবে- বিষয় নির্বাচনের গুরুত্বপূর্ণ দিক, কোন ধরনের কিওয়ার্ডের প্রতি মানুশের আগ্রহ বেশী, আপনার বাছাই করা কিওয়ার্ডের উপর বিজ্ঞাপনদাতা কেমন? তাদের বিজ্ঞাপন প্রতি খরচ হয় কেমন? কিওয়ার্ড রিসার্চের জন্যে প্রয়োজনীয় টুলস, আপনার বাছাই করা কিওয়ার্ড র‍্যাঙ্ক করানো সহজ হবে নাকি কঠিন হবে? এছাড়াও আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে বিশদ আলোচনা তো থাকবেই।

এই টিউনে  ব্যবহৃত রেফারেন্স সমুহঃ 

  1. ডোমেইন কিনবেন? একটু বুঝে শুনে কিনুন, যদি প্রতারিত হতে না চান! মনোযোগ দিয়ে পড়ুন। কাজে লাগবে অবশ্যই
  2. নতুন হোস্টিং কেনার আগে একবার দেখে নিন

আরো পোস্ট দেখুন

comments