বাড়িতে বানিয়ে ফেলুন মজাদার কাঁচাগোল্লা

রেসিপিটা লিখতে বসলাম কাঁচাগোল্লা খেয়ে। রেসিপিটা আমার নয়। আমার বোনের। তার কাছ থেকে জেনে নিয়ে সোর্স টিউনের পাঠকদের জন্য রেসিপিটা লিখতে বসলাম। রেসিপিটা একদম সহজ। নিচে কাঁচাগোল্লা বানানোর পর তা দেখতে কেমন হয়েছে তার একটি ছবি দিয়ে দেয়া হল।  তো আসুন গল্প ছেড়ে কাজের কথায় আসি। প্রথমেই কাঁচাগোল্লা বানাতে যেসব উপকরন লাগবে তা একনজরে দেখে নেই।

উপকরনঃ ছানা ১ কাপ, মাওয়া ১ কাপ, এলাচ গুরা ১/২ চা চামচ, চিনি ১/২ কাপ, ১/২ চা চামচ গুরা দুধ।

মাওয়া কিভাবে বানাবেনঃ গুরাদুধ, ঘি এবং চিনি মিশিয়ে ফেলুন। এটিই মাওয়া।

ছানা যেভাবে বানাবেনঃ প্রক্রিয়াঃ

১. দুধ জ্বাল দিতে হবে এবং মাঝে মাঝে নাড়তে হবে যাতে পাতিলের নীচে না লাগে।
২. দুধে বলক আসলে ( ফুটে উঠলে) পাতিল নামিয়ে ৫থেকে ১০ সেকেন্ড পর একটু একটু করে সিরকার মিশ্রন ছড়িয়ে দিতে হবে, এবং নেড়ে দিতে হবে,
৩. যখন দুধ ছানা হয়ে যাবে এবং পানিটা সবুজাভ হবে তখন পাতিল টাকে প্রায় ঠান্ডা হওয়া পর্যন্ত রাখতে হবে।
৪. পাতিল যখন প্রায় ঠান্ডা হয়ে যাবে তখন ছানার পানি ঝরিয়ে নিতে হবে একটা সুতির পাতলা কাপড়ে ছানার পানি ঝরাতে হবে।এবং কলের নিচে একটা ঝাঝরি এর উপর ছানার কাপড়টা রেখে পানি দিয়ে ছানা টাকে নেড়ে নেড়ে ধুয়ে নিতে হবে, ২ বারের মত ভালো করে ছানাটা ধুয়ে নিতে হবে।
৫. এবার পুটলিকে হাত দিয়ে চেপে চেপে পানি যতটুকু বের করা যায় করতে হবে।তারপর ঝুলিয়ে রাখতে হবে পানি ঝরার জন্য।
৬. ১/২ ঘন্টা পর ছানার পুটলি টাকে আবার চাপ দিয়ে দিয়ে পানি বের করে দিতে হবে, আবার ঝুলিয়ে রাখতে হবে।
৭. আবার ১/২ ঘন্টা পর পুটলিটাকে আগের মত চেপে চেপে পানি যতটুকু সম্ভব বের করে, ছানাটা একটা ছড়ানো প্লেটে রাখতে হবে। ৫ থেকে ১০ মিনিট হাত দিয়ে একটু ছড়িয়ে দিয়ে বাড়তি পানি টা শুকিয়ে নিতে হবে।
৮. ছানাটা খুব নরম থাকবে,( হাত দিয়ে পুরোটাকে একটা বলের মত কর যাবে কিন্তু নরম হবে।
প্রণালীঃ প্রথমে ছানাকে চিনি এলাচি গুরা দিয়ে ভালভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। মিশান হয়ে গেলে ফ্রাইপেনে অল্প আচে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে নামানোর আগে অল্প গুরাদুধ দিয়ে নামিয়ে ফেলতে হবে। ঠাণ্ডা হলে মাওয়া তে গরিয়ে পরিবেশন করুন।

10622885_561848007290940_8915047456511362940_n

 

 

ফেসবুকে আমি ঃ-FA Shopnil

আরো পোস্ট দেখুন

comments