বাংলাদেশের ক্রিকেটার তারুণ্যর নক্ষত্র মুস্তাফিজের বিশ্বরেকর্ড

MuztafizurRahman

ওয়ানডেতে টানা তিন ম্যাচে পাঁচ উইকেট নেয়ার একমাত্র কীর্তিটি ওয়াকার ইউনুসের। কাল সেই রেকর্ডে ভাগ বসানোর সুযোগ ছিল বাংলাদেশের পেস-বিস্ময় মুস্তাফিজুর রহমানের। কিন্তু ভারতের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডেতে মুস্তাফিজ পেলেন দুই উইকেট। তাতে ওয়াকারের রেকর্ড অক্ষত থাকলেও মুস্তাফিজের হাতে ধরা দিল দুই দুইটি বিশ্বরেকর্ড! প্রথম দুই ম্যাচে ১১ উইকেট নেয়ার অবিস্মরণীয় কীর্তির পর কাল নিজেকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেলেন ‘সাতক্ষীরা এক্সপ্রেস’। টানা তিন ম্যাচে পাঁচ উইকেট না পেলেও আফসোসের কিছু নেই মুস্তাফিজের। ক্যারিয়ারের প্রথম তিন ওয়ানডেতে পাওয়া ১৩ উইকেটেই রেকর্ডের পাতা তছনছ। তিন ম্যাচের সিরিজে অভিষেকে সর্বোচ্চ উইকেট নেয়ার বিশ্বরেকর্ড এখন মুস্তাফিজের।

অভিষেকের পর প্রথম দুই ম্যাচে সবচেয়ে বেশি উইকেট নেয়ার রেকর্ড আগেই গড়েছেন। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে শেষ ওয়ানডেতে রোহিত শর্মাকে আউট করে গড়েন আরও একটি রেকর্ড। ক্যারিয়ারের প্রথম তিন ম্যাচে তিনি সর্বোচ্চ উইকেটের মালিক হয়ে যান তখনই। এরপর সুরেশ রায়নাকে আউট করে নিজেকে নিয়ে যান আরও উঁচুতে।

ক্যারিয়ারের প্রথম ৩ ম্যাচে ১১ উইকেটের রেকর্ড ছিল চারজন বোলারের। ভারতের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডেতে রোহিত শর্মার উইকেট নিয়েই মুস্তফিজ ছাড়িয়ে যান সবাইকে। পরে আরও একটি উইকেট নিয়ে রেকর্ডটি আরও সমৃদ্ধ করেছেন মুস্তাফিজ। নিজের শেষ ওভারে বোল্ড করেছেন সুরেশ রায়নাকে। আর এ উইকেট মুস্তাফিজকে এনে দিয়েছে আরেকটি বিশ্বরেকর্ড, তিন ম্যাচের সিরিজে সর্বোচ্চ উইকেট! তিন ম্যাচে সর্বোচ্চ উইকেটের রেকর্ডটি ছিল বাংলাদেশের বিপক্ষেই। ২০০২ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজের সবক’টিতেই চার উইকেট নিয়েছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ পেসার ভ্যাসবার্ট ড্রেকস। ওই সিরিজে তিনি নিয়েছিলেন ১২ উইকেট। এক সিরিজের তিন ম্যাচে ১৩ উইকেট পেয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ান পেসার রায়ান হ্যারিসও। তবে সেটি ছিল পাঁচ ম্যাচের সিরিজ। সে হিসাবে তিন ম্যাচের সিরিজে ১৩ উইকেট নেয়ার রেকর্ড শুধু মুস্তাফিজেরই। বাংলাদেশের হয়ে তিন ম্যাচ সিরিজে আগের সেরা ছিল মাশরাফি মুর্তজার ১২ উইকেট, ২০০৬ সালে কেনিয়ার বিপক্ষে।

সোর্সঃ http://www.jugantor.com

আরো পোস্ট দেখুন

comments