জনপ্রিয় সোশ্যাল নেটওয়ার্ক ফেসবুকের যেসব লিঙ্কে ভুলেও ক্লিক করবেন না

আপনি কি কখনও ফেসবুক প্রোফাইলের থিম-পাল্টানোর রিকোয়েস্ট পেয়েছিলেন? পেয়ে কি খুশি হয়েছেন নাকি হননি? নিস্নদেহে এমনটি হলেই মনে রাখবেন বিপদে পড়বেন। চেষ্টা করবেন এ থেকে সবসময় সাবধানে থাকতে। ইদানিং ফেসবুকে ‘কালার বা থিম চেঞ্জ’ বা রং পরিবর্তনের বিশেষ একটি ভিন্ন ধরনের ম্যালওয়্যার নতুন করে আবার ছড়িয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে দেখা গেছে বিশ্বজুড়ে ১০ হাজারের বেশি ফেসবুক ব্যবহারকারীকে বোকা বানিয়ে এই ভাইরাসটি আক্রমণ করেছে বিভিন্ন ব্যবহারকারীর টাইমলাইনে।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবর এবং ফেসবুকে প্রোফাইলের রং পরিবর্তনের এই ম্যালওয়্যারটি আগেও পাওয়া গিয়েছিল। যদিও বা ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এই ভাইরাস ম্যালওয়্যারটি সরিয়ে ফেলেছিলেন কিন্ত আবারো তা ফিরে এসেছে।

FacebookVirus2015
সাধারণত এই ভাইরাস ম্যালওয়্যারটি ফেসবুকে একটি বিজ্ঞাপনের মত করে ব্যবহারকারীকে তাতে ক্লিক করার জন্য প্রলুব্ধ করে। এবং এতে বলা হয়, এখন থেকে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা তাদের ফেসবুক প্রোফাইলের রং পরিবর্তনের একটা ভালো সুযোগ পাবেন। এবং ব্যবহারকারীকে এই অ্যাপসটি ডাউনলোড করতেও বলা হয়। এই অ্যাপসটি ডাউনলোড করতে গেলেই আপনাকে সম্পূর্ণ ভাইরাসপূর্ণ একটি সাইটে প্রবেশ করাবে এবং এরপর ঘটবে ব্যবহারকারীর প্রোফাইলে। তারপর থেকেই মূলত শুরু হবে বিপদ আর বিপদ।

আর সেই রং পরিবর্তনের জন্য যে বিজ্ঞাপনে ক্লিক করা হবে ফেসবুকে লগইন তথ্য থেকে শুরু করে অনেক কিছু চুরি করে নেয় এই ভাইরাস ম্যালওয়্যারটি। এছাড়াও ব্যবহারকারীদের রং পরিবর্তন করার জন্য ব্যব্যহারকারিকে একটি টিউটোরিয়াল ভিডিও দেখতে বলা হয়।
এমনকি ফেসবুক ব্যবহারকারীদের বন্ধুদের মাঝে এই ভাইরাস ম্যালওয়্যারটি ছড়িয়ে যাওয়ার অনেক বেশি আশঙ্কা থাকে। ব্যবহারকারী যদি বিজ্ঞাপনে ক্লিক করার পর ভিডিও না দেখেন, তাহলে তখন ওই ভাইরাস ম্যালওয়্যারপূর্ণ সাইটটিতে আপনাকে জোর করে একটি অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করতে বাধ্য করবে। এছাড়াও চেষ্টা করবে কম্পিউটারে একটি পর্নোগ্রাফিক ভিডিও প্লেয়ার ডাউনলোড করানোর জন্য। লোভে পরে ডাউনলোড করবেন তো মরবেন।

নতুন এই ভাইরাস ম্যালওয়্যারটি ছাড়াও ফেসবুকে অনেক কয়েকটি জনপ্রিয় স্ক্যাম সম্পর্কে বিশেষ সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন অন্যতম অ্যান্টিভাইরাস নির্মাতাপ্রতিষ্ঠান বিটডিফেন্ডারের বিশেষজ্ঞ ভাইরাস বিশ্লেষকরা। এর মধ্যে একটি হল প্রোফাইল দেখার পরিসংখ্যান।
আপনি যদি ফিরে দেখেন আপনার ফেসবুক প্রোফাইল কে কতবার দেখছেন, সেই ধরনের তথ্য সম্পর্কিত একটি লিঙ্ক হয়তো আপনার নিউজ ফিডে হয়তো দেখতে পারেন। এবং কারা কতবার আপনার প্রোফাইল দেখছেন, সে তথ্য জানানোর জন্য বিজ্ঞাপন আকারে যে প্রতিশ্রুতি দেয়া হয় তা সম্পূর্ণ ভুয়া। ফেসবুক এ ধরনের কোনো জিনিস অনুমোদন করে না। তাই এ ধরনের কোনো লিঙ্ক দেখলে ক্লিক করবেন না।
এরকমই আরেকটি বড় স্প্যাম হচ্ছে আন্তর্জাতিক কোনো বিখ্যাত ব্যক্তিত্বের নামে সেক্স ভিডিও। ‘লিকড সেক্স ভিডিও’ নামে ফেসবুকে অসংখ্য স্প্যাম রয়েছে। বিনামূল্যে ফেসবুকের টি-শার্ট বা অন্য যেকোনো উপহার সামগ্রী দেয়ার লোভ দেখিয়ে কাউকে কোনো লিঙ্ক ক্লিক করতে বলা হয়। তাতে ভুলেও ক্লিক করবেন না, মনে রাখবেন ক্লিক করলেই নিজের বিপদ।

আরো পোস্ট দেখুন

comments