প্রিয় লেখক হুমায়ূন আহমেদের সেরা উক্তিগুলো

তরুণদের মধ্যে একটা বিরাট অংশ হুমায়ুন আহমেদ স্যারের ভক্ত। শুধু তরুন বললে ভুল হবে। সব বয়সের মানুষের কাছেই হুমায়ুন আহমেদ প্রিয় লেখক ছিলেন। তিনি এখন আমাদের মাঝে নেই তবুও তার কিছু কিছু বা লেখা আজও আমাদের মন কে জয় করে রেখেছে। তাই হুমায়ুন ভক্তদের জন্য আজকে আমার এই লেখা। এখানে আমি হুমায়ুন স্যারের অনেকগুলো কাল জয়ী বাণী সংগ্রহ করে উদ্ধৃত করেছি। আশা করি ভালো লাগবে।

‘জীবনটা আসলেই অনেক সুন্দর। এতো বেশি সুন্দর যে,মাঝে মাঝে অসহ্য লাগে!’
‘মানুষের সব শখ মেটা উচিত নয়। কারণ সব শখ মিটে গেলে,বেঁচে থাকার প্রেরণা নষ্ট হয়ে যায়।’
‘মেয়েদের সবচেয়ে বেশি আনন্দ হয়, তখন, যখন ঝগড়াতে স্বামীকে হারাতে পারে। স্বামীর পরাজিত মুখ স্ত্রীর কাছে যুদ্ধে জয়ের মতো ‘

‘পৃথিবীর সবচেয়ে অসুন্দর দৃশ্য হল লোভে চকচক করা চোখ। আর সবচেয়ে সুন্দর দৃশ্য গভীর মমতায় আর্দ্র প্রেমিকার চোখ।’

‘ভালবাসা মাপার জন্য বিজ্ঞানীরা এইপর্যন্ত কোনো মাপকাঠি বানাতে পারেনি।যদি পারত তাহলে সেখানে প্রথম স্থানে থাকতো “মা” নামের নিঃস্বার্থ মহিলাটি।’

‘পৃথিবীতে ২ ধরনের মানুষে আছে। এক ধরনের মানুষ রাগ প্রকাশ করতে পারে, খুশি প্রকাশ করতে পারে না। আরেক ধরনের মানুষ খুশি প্রকাশ করতে পারে, রাগ প্রকাশ করতে পারে না।’

‘মানুষের জীবনে একেকটা দিন একেক রকম হয়ে আসে কোনো কোনো দিনে মন খারাপ হবার মত ব্যাপার ঘটলেও মন খারাপ হয় না বরং ভালো হয়ে যায়।’

‘পৃথিবীতে কিছু কিছু মানুষ সম্ভবত কষ্ট পাবার জন্যই জন্মায়। টাকা পয়সার কষ্ট নয়- মানসিক কষ্ট।’
পাখি উড়ে গেলেও পালক
ফেলে যায় আর মানুষ
চলে গেলে ফেলে রেখে যায়
স্মৃতি ।
——— হুমায়ূন আহমেদ
ঈশ্বর যদি কাউকে মারতে চান তাহলে কি তার কোন আয়োজন করার প্রয়োজন আছে ? তাহলে মরতে কিসের ভয় , একবারই তো মরতে হবে ।
———– হুমায়ূন আহমেদ
চাঁদের বিশালতা মানুষের মাঝেও আছে, চাঁদ এক জীবনে বারবার ফিরে আসে…ঠিক তেমন মানুষ প্রিয় বা অপ্রিয় যেই হোক,একবার চলে গেলে আবার ফিরে আসে..
——– হুমায়ূন আহমেদ
ভালবাসাবাসির ব্যাপারটা হাততালির মতো। দুটা হাত লাগে। এক হাতে তালি বাজে না। অর্থাৎ একজনের ভালবাসায় হয় না……
——–হুমায়ূন আহমেদ
হারিয়ে যাওয়া মানুষ ফিরে আসলে সে আর আগের মত থাকে না….. কেমন জানি অচেনা অজানা হয়ে যায় । সবই হয়তো ঠিক থাকে কিন্তু কি যেন নাই…… কি যেন নাই……
——–হুমায়ূন আহমেদ
আমার হারিয়ে ফেলার কেউ নেই । কাজেই খুঁজে পাওয়ারও কেউ নেই । আমি মাঝে মাঝে নিজেকে হারিয়ে ফেলি , আবার খুঁজে পাই..
——হুমায়ূন আহমেদ
“যে স্বপ্ন দেখতে জানে ,সে তা পূর্ণও করতে পারে”
আমরা মনে হয় স্বপ্ন দেখাই ভুলে গেছি…আর যেটুকুই বা দেখি তা নিজেরাই বিশ্বাস করতে চাই না…তাই পূর্ণও করতে পারি না।
——–হুমায়ূন আহমেদ
নারীদেরকে সৃষ্টিকর্তা পূর্ণতা দিয়েই পাঠিয়েছেন । শুধু পূর্ণতাই না অতিরিক্ত দিয়ে দিয়েছেন। তাই তো আমরা ‘অপূর্ণ পুরুষ’ পূর্ণ হতে এই নারীদেরই প্রয়োজন হয়.
——হুমায়ূন আহমেদ
তুমি দশটি সত্য এর মাঝে একটি মিথ্যা মিশিয়ে দাও…সেই মিথ্যাটিও সত্য হয়ে যাবে…কিন্তু তুমি দশটি মিথ্যার মাঝে একটি সত্য মিশাও… সত্য সত্যই থেকে যাবে….সেটি আর মিথ্যা হবে না…সত্য আসলেই সুন্দর…
——–হুমায়ূন আহমেদ
নোংরা কথা শুনতে নিষিদ্ধ আনন্দ আছে, কথা যত নোংরা তত মজা।
———–হুমায়ুন আহমেদ
যাদের জীবনে মজার অংশ কম …তারা অন্যের মজা দেখে আনন্দ পায় …দুধের স্বাদ ভাতের মাড়ে মেটানোর মত.
————হুমায়ুন আহমেদ
“গার্লফ্রেন্ড বিহীন তরুনের পৃথিবীতে বেঁচে থাকা,
ঘাসবিহীন মাঠে গরুর পায়চারির মত”
———-হুমায়ুন আহমেদ
জীবনটা আসলেই অনেক সুন্দর!
এতো বেশি সুন্দর যে, মাঝে মাঝে অসহ্য লাগে।
———-হুমায়ুন আহমেদ
ছেলে এবং মেয়ে বন্ধু হতে পারে,
কিন্তু তারা অবশ্যই একে অপরের প্রেমে পড়বে।
হয়ত খুবই অল্প সময়ের জন্য, অথবা ভুল সময়ে।
কিংবা খুবই দেরিতে, আর না হয় সব সময়ের জন্য।
“পৃথিবীতে অসংখ্য খারাপ মানুষ আছে কিন্তু একজনও খারাপ বাবা নাই।”
…………..হুমায়ুন আহমেদ
এ জগতে সবচে’ সুখী হচ্ছে সে, যে কিছুই জানে না।
জগতের প্যাঁচ বেশি বুঝলেই জীবন জটিল হয়ে যায়.
……………হুমায়ুন আহমেদ
অনুশোচনার হাড়ি নিয়ে বসলেও অতীতকে বদলানো যাবে না
————হুমায়ূন আহমেদ
সবাই তোমাকে কষ্ট দিবে, তোমাকে শুধু এমন একজন
কে খুঁজে নিতে হবে যার দেয়া কষ্ট তুমি সহ্য
করতে পারবে….
——– হুমায়ূন আহমেদ
যে মানুষটিকে তুমি দেখছো তাকেই যদি ভালো না বাসতে পারো,
তবে তুমি কিভাবে ঈশ্বরকে ভালোবাসবে যাকে তুমি কোনদিন দেখোই নি?
——– হুমায়ূন আহমেদ
স্বপ্ন থাকা খুবই জরুরি…স্বপ্ন না থাকলে ভোরবেলায় ঘুম থেকে ওঠার কোনো মানেই হয় না…সারা জীবন শুয়ে থাকলেই তো হয়…
——– হুমায়ূন আহমেদ
মানুষই একমাত্র প্রাণী যে পুরোপুরি সফল জীবনযাপন করে আফসোস নিয়ে মৃতবরণ করে..
———— হুমায়ূন আহমেদ
কোন কোন রাতে অপূর্ব জোছনা হয়। সারা ঘর নরম আলোয় ভাসতে থাকে। ভাবি, একা একা বেড়ালে বেশ হতো।
আবার চাদর মুড়ি দিয়ে নিজেকে গুটিয়ে ফেলি। যেন বাইরের উথাল
পাথাল চাঁদের আলোর সঙ্গে আমার কোন যোগ নেই।
মাঝে মাঝে বৃষ্টি নামে। একঘেয়ে কান্নার সুরের মতো সে শব্দ।
আমি কান পেতে শুনি। বাতাসে জাম গাছের পাতার সর
সর শব্দ হয়। সব মিলিয়ে হৃদয় হা হা করে উঠে।
আদিগন্ত বিস্তৃত শূন্যতায় কি বিপুল বিষণ্ণতাই না অনুভব করি। জানালার ওপাশের অন্ধকার
থেকে আমার সঙ্গীরা আমায় ডাকে। একদিন যাদের সঙ্গ পেয়ে আজ নিঃসঙ্গতায় ডুবছি …
——-হুমায়ূন আহমেদ

আরো পোস্ট দেখুন

comments