খুশকি তাড়ানোর ঘরোয়া সমাধান

hair1_600x450

চুলজনিত সমস্যার মধ্যে খুশকিকে মোটামুটি চোখ বুঝে প্রথম সারিতে রাখা যায়। খুশকি নিয়ে বিপদে নেই এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল। খুশকির জন্য দায়ী অন্যতম প্রধান কারণ হল মাথার ত্বকের মৃত কোষ। আবার অনেকের মাথার ত্বকে অতিরিক্ত তেল নিঃসৃত হওয়া ও জেনেটিক কারণেও খুশকি হতে দেখা যায়। আমরা অনেকেই মাথায় খুশকি হওয়াকে পাত্তা দিতে চাইনা কিন্তু যখন সাদা সাদা খুশকি আপনার মাথা থেকে ঘাড়ে ও কাঁধে ঝরে পড়ে তখন যে বিব্রতকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় সেটা কিন্তু পাত্তা না দিয়ে উপায় থাকেনা। এমনকি অতিরিক্ত খুশকি থাকলে আপনার মাথায় স্থায়ী ক্ষতের সৃষ্টি হতে পারে। তাই খুশকিকে খুব হালকাভাবে না নিয়ে এটি প্রতিরোধ বা প্রতিকারের জন্য আজই আপনার সচেতন হওয়া দরকার।

যারা খুশকি নিয়ে বিপদে আছেন তারা আর্টিকেলটি পড়তে মিস করবেন না। এই আর্টিকেলে আজ আপনাদের জানাবো কী করে ঘরে বসে আপনার মাথার খুশকি সমস্যার সমাধান করবেন।

খুশকি তাড়ানোর ঘরোয়া সমাধান-

১/খুশকি তাড়াতে ভিনেগারঃ
যা যা লাগবে-
-১ কাপ গরম পানি
-১ কাপ হোয়াইট ভিনেগার
-১ টি কাপ

১ টি কাপে গরম পানি আর ভিনেগার নিয়ে ভালোভাবে মিশান। এবার এই মিশ্রণ নিয়ে আপনার চুলের গোঁড়ায় সুন্দর করে লাগিয়ে নিন। এটা লাগিয়ে রাখার ১০ থেকে ২০ মিনিট পর স্বাভাবিক পানি দিয়ে মাথা ধুয়ে ফেলুন। এভাবে আপনি সপ্তাহে এক থেকে দুই বার এই পদ্ধতি অনুসরণ করলে খুশকি কমে আসবে আশা করি তবে আপনি আপনার চুলে খুশকির উপস্থিতি বুঝে এটি ব্যবহার করুন। আর একটা ব্যাপার মনে রাখবেন আপনার চুলের পরিমাণ বুঝে এই দুই উপাদানের মিশ্রণ কম বেশি ইচ্ছে মতো বানাতে পারেন।

২/খুশকি তাড়াতে বেকিং সোডাঃ
যা যা লাগবে-
-১ টেবিল চামচ বেকিং সোডা
-১ কাপ গরম পানি
-কয়েক ফোটা রোজমেরি অয়েল(বাধ্যতামূলক নয়)

প্রতি ১ টেবিল চামচ বেকিং সোডার সাথে ১ কাপ গরম পানি মিশিয়ে তা একটি বোতলে পুরে ভালোভাবে ঝাকিয়ে নিন। রেগুলার শ্যাম্পু করার আগে এই মিশ্রণ দিয়ে আপনার চুল ধুয়ে নিন আবার আপনি চাইলে শ্যাম্পুর সাথে এই মিশ্রণ মিশিয়ে নিয়ে শ্যাম্পু করতে পারেন। প্রথমে হয়তো এতে আপনার চুল কিছুটা ড্রাই লাগতে পারে কিন্তু আস্তে আস্তে সেটা স্বাভাবিক হয়ে যাবে। আর রোজমেরি তেলটা এখানে অপশনাল। আপনি চাইলে ব্যবহার করতে পারেন আবার না চাইলে করবেন না। তবে রোজমেরি তেল খুশকি তাড়াতে সহায়তা করে তাই আপনি এই মিশ্রণ রেডি করার সময় কয়েক ফোটা তেল নিতেই পারেন।

৩/খুশকি তাড়াতে নিমপাতাঃ
যা যা লাগবে-
-কমপক্ষে দুই মুষ্টি নিমপাতা
-৪ থেকে ৫ কাপ গরম পানি

দুই মুষ্টি নিমপাতা নিয়ে ৪ থেকে ৫ কাপ গরম পানির মধ্যে সারারাত ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন সকালে এই পানি দিয়ে আপনার মাথা ধুয়ে ফেলুন। এভাবে কিছুদিন এটি ব্যবহার করে দেখুন খুশকি চলে যাবে। আপনি চাইলে শুধু নিমপাতা বেটে তা চুলে লাগিয়ে ১ ঘণ্টা মতো রেখে চুল ধুয়ে ফেলুন দেখবেন খুশকি কমে যাবে।

৪/খুশকি তাড়াতে লেবুঃ
যা যা লাগবে-
-২ টেবিল চামচ ও ১ চা চামচ ফ্রেশ লেবুর রস
-১ কাপ পানি

প্রথমে ২ টেবিল চামচ লেবুর রস আপনার মাথার ত্বকে ম্যাসাজ করুন ও ২ থেকে ৫ মিনিট রাখুন। এবার ১ চা চামচ লেবুর রস ও ১ কাপ পানি মিশিয়ে সেটা দিয়ে মাথা ধুয়ে ফেলুন। যতদিন খুশকি পুরোপুরি না যায় ততদিন এভাবে ব্যবহার করুন।

৫/খুশকি তাড়াতে অ্যালোভেরা জেলঃ

শুধু মাত্র অ্যালোভেরা জেল নিয়ে আপনার মাথার ত্বকে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর চুল ধুয়ে ফেলুন এবং তারও ১৫ মিনিট পর চুল শ্যাম্পু করে ফেলুন। এতেই আপনার মাথায় খুশকির যন্ত্রণা কমে আসবে। এটি আপনার মাথায় খুশকি বুঝে যতদিন ইচ্ছে ফলো করে যান।

চুল খুশকি মুক্ত রাখতে আপনার চুল পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন। আর একটা ব্যাপার মনে রাখুন, মাথায় অ্যান্টিডান্ড্রাফ শ্যাম্পু দিয়েই মাথার চুল ধুয়ে ফেলবেন না, মিনিমাম ৫ মিনিট অপেক্ষা করে তারপর চুল ধুয়ে নিন এতে শ্যাম্পু সত্যিকার অর্থে কাজ করবে।

আরো পোস্ট দেখুন

comments