ঈদে লুক বদলাতে চাইলে চাই হেয়ার কাট

EidNewLookHaircut

ইদানিং মেয়েরা চুল নিয়ে নানা ধরনের এক্সপেরিমেন্ট করতে পিছপা হচ্ছে না। কখনো লম্বা চুলে হরেক রকমের কাট,আবার কখনো ছোট চুলের জ্যামিতিক ছাট। লেয়ার, স্টেপস আর ব্যাংস-এই আর সীমাবদ্ধ নেই হেয়ারস্টাইল। বৈচিত্র্য এসেছে চুলের কাটেও। ঈদের উৎসবে কেমন হেয়ারস্টাইল দিয়ে লুক পাল্টে ফেলতে পারেন, এ বিষয়ে বিউটি এক্সপার্ট তানজিমা শারমিন মিউনি বলেন-

হেয়ারকাটে বৈচিত্র্য আনা যেতে পারে। কারণ এ সময় শর্ট হেয়ারকাট যেমন স্বস্তি দেয়, তেমনি এতে করে চুলের বিশেষ যত্ন নেয়ার সুযোগ হয়। এ মৌসুমে চুল সব সময় পরিষ্কার রাখতে হয়। তাই চুলের ছাট যদি ছোট থাকে তাহলে চুলের যত্ন নেয়ায় সুবিধা হয়। তবে অনেকেই নিজের এতো প্রিয় চুলকে কেটে ছোট করতে চায় না। তাদেরও নিরাশ হবারও কিছু নেই। কারণ এবার লম্বা চুলের কাটেও এসেছে বৈচিত্র্য।

একটা সময় ছিল যখন চুলে ছোট ছাট দেয়ার জন্য বব আর ডায়না কাট ছাড়া আর কোনো অপশন ছিল না। কিন্তু বর্তমানে ছোট চুলের ছাটের মধ্যে এসেছে অনেক ধরন। ইদানিং অনেকেই পিক্সি কাট, সামার বব আর ক্লাসিক বব কাট নিচ্ছে। জনপ্রিয় হচ্ছে বব স্যাগও। ছোট চুল বলতে একেবারেই ছোট নয়। ঘাড় ছুঁয়ে কিছুটা নিচে নেমে আসে এমনটাও পড়ে এ ঘরানায়।

লেয়ার, ব্যাংস আর স্টেপের বাইরে লম্বা চুলে বৈচিত্র্য আসতে পারে ইমো কাটের মধ্য দিয়ে। ইমো কাটে একটা অংশের চুল ঢেকে রাখবে এক চোখকে। সামনের চুলগুলো এতে একটু বড় থাকবে। একে বলা হয় ইমো সুইফট। মূলত ক্যারেক্টারের ওপর নির্ভর করে ইমো কাট নিয়ে থাকেন অ‌নেকে। ইমো কাটের আরেকটি ধরনের নাম হচ্ছে সিন ইমো। এতে সামনের চুল চোখের ওপর এসে থাকে না। এতে সামনের চুলের অনেক ছোট করে কাটা থাকে। আর পেছনেও চুলে অনেক লেয়ার হয়ে কাটা থাকে। তবে লম্বা চুলে এই হেয়ার কাটের ফলে চুলের নিচের অংশ পাতলা হয়ে যায়।

ঈদের ৭/৮ দিন আগে হেয়ারকাট নেয়া সবচেয়ে উপযুক্ত। কারণ দেখা যায় হেয়ারকাট নেয়ার পর স্যালুন থেকেই সেট করে দেয়া চুল প্রথম দিকে ভালোই মানিয়ে যায়। কিন্তু বাসায় ফিরে তা ওয়াশ করার পর এর সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নিতে কিছুটা সময় লাগে। তাই ঈদের দিন কয়েক আগে চুলের সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নেয়ার কিছুটা সময় দেয়া প্রয়োজন। এতে করে ঈদের আয়োজনে নতুন হেয়ারস্টাইলকে আপনাকেও দেখাবে নতুন। এজন্যই হাতে অন্তত এক সপ্তাহ সময় নিয়ে হেয়ারকাট করানোর ভালো।

আরো পোস্ট দেখুন

comments