ই-কমার্স বিজনেসের জন্য প্রোডাক্ট রিভিও

“Branoo E-Commerce Writing Competition”

branoo.com বর্তমান সময়ের সেরা ই-কমার্স সাইট গুলোর মধ্যে অন্যতম শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি অনেকদিন ধরে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ব্র্যান্ডের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বাজারজাত করে আসছে। গ্রাহকদের কাছে সুলভ মূল্যে সঠিক এবং গুণগত মানসম্পন্ন পন্য পৌঁছে দেয়াই branoo.com এর একমাত্র লক্ষ্য।

 

ই-কমার্স বিজনেসের জন্য ভালো এবং আকর্ষণীয় প্রোডাক্ট রিভিউ অত্যান্ত জরুরী। আপনার ই-কমার্স বিজনেসে কাস্টমার প্রোডাক্ট কিনতে আগ্রহী হবে মূলত সুস্পষ্ট প্রোডাক্ট রিভিউয়ের উপর ভিত্তি করে। তাই আপনার ই-কমার্স বিজনেসকে দ্রুত এগিয়ে নিতে এবং অধিক সেলিং এর জন্য প্রোডাক্ট রিভিউয়ের উপর অনেক গুরুত্ব দিতে হবে। এই টিউনে আপনাদের জন্য থাকছে ই-কমার্স বিজনেসের প্রোডাক্ট রিভিউ নিয়ে কিছু আলোচনা এবং টিপস। তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

প্রতিটা প্রোডাক্ট সম্পর্কে পরিপূর্ন ভাবে বিস্তারিত লিখুন। খেয়াল রাখুন প্রোডাক্ট সম্পর্কে যেন কোন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বাদ না যায়। মনে রাখবেন পরিপূর্ন তথ্যের অভাবে কাস্টমারের মনে কনফিউশন তৈরি হলে সেলিং ব্যহত হতে পারে। প্রোডাক্টের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অংশের স্পষ্ট ছবি ব্যবহার করুন। অধিক আকর্ষণীয় তৈরির করার জন্য কখনই কোন ভুল তথ্য ব্যবহার করবেন না। কারন বিজনেসটা যেহেতু অনলাইন ভিত্তিক তাই কোন ভুল তথ্যের কারনে কাস্টমার খারাপ রিভিউ দিলে, তার প্রভাব নতুন অনেক কাস্টমারকে ফিরিয়ে দিতে পারে। নতুন এবং আনকমন প্রোডাক্টের জন্য ভিডিও রিভিও তৈরি করুন, এতে করে প্রোডাক্টটি সম্পর্কে কাস্টমার সুস্পষ্ট ধারনা পাবে এবং কেনার জন্য মনস্থির করতে পারবে।

 

2

ই-কমার্স ওয়েবসাইটে প্রোডাক্টের জন্য সুন্দর ক্যাটাগরি তৈরি করুন, যাতে করে কাস্টমার তার চাহিদা মত প্রোডাক্ট সহজেই খুঁজে পায়। নতুন এবং আকর্ষণীয় প্রোডাক্ট গুলোকে ওয়েবসাইটের শুরুতেই হাইলাইট করুন। প্রোডাক্টের জন্য কোন অফার বা ডিস্কাউন্ট থাকলে তা এমন ভাবে প্রকাশ করুন যেন কাস্টমারের চোখে সহজেই ধরা পরে। কাস্টমারের প্রোডাক্ট সম্পর্কে কোন কিছু জানার বা প্রশ্ন করার জন্য আপশন রাখুন এবং তা দ্রুততার সাথে সাপোর্ট দেয়ার ব্যবস্থা রাখুন। প্রোডাক্টের জন্য ওয়ারেন্টি তাহলে, প্রোডাক্ট স্টক আউট থাকলে এবং প্রোডাক্ট লিমিটেড হলে তা স্পষ্ট ভাবে উল্লেখ করে দিন। সর্বোপরি একজন কাস্টমার যেন আপনার ই-কমার্স ওয়েবসাইটে এসে প্রোডাক্ট পছন্দ করার ক্ষেত্রে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে সেদিকে লক্ষ্য রাখুন।

 

3

প্রতিটা প্রোডাক্টের জন্য কাস্টমার রিভিউয়ের বা মন্তব্য করার ব্যবস্থা করতে পারেন। একটি প্রোডাক্টের সুন্দর কিছু কাস্টমার রিভিউ সেই প্রোডাক্টের সেলিং অনেক বাড়িয়ে দিতে পারে। কারন একজন কাস্টমার প্রোডাক্টের রিভিউ দেখার পাশপাশি ওই প্রোডাক্ট ইউজারের রিভিউ দেখতে পেলে প্রোডাক্টটি কিনতে অবশ্যই আস্থা পাবে। কাস্টমার রিভিউ গুলোকে রেটিং করার ব্যবস্থা করতে পারেন। বেস্ট রেটেড রিভিউ গুলোকে আগে রাখুন, এবং অযথা কোন নেগেটিভ রিভিউ না রাখাই ভালো। কাস্টমার রিভিউয়ের জন্য বিভিন্ন মাধ্যম খোলা রাখুন, যেমন ইমেইলের মাধ্যমে, সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ইত্যাদি।

 

আজকের মত এই পর্যন্তই। পরবর্তী টিউনে ই-কমার্স সম্পৃক্ত আরও আলোচনা নিয়ে হাজির হবো। সেই পর্যন্ত ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন আর সোর্সটিউনের সাথে থাকুন। আর হ্যাঁ টিউন কেমন হয়েছে জানাতে ভুলবেন না, আপনাদের উৎসাহই আরও ভালো টিউন উপহার দেয়ার অনুপ্রেরণা যোগাবে। ফেসবুকে আমি

আরো পোস্ট দেখুন

comments